শুক্রবার , সেপ্টেম্বর ১৩ ২০১৯
Home / আন্তর্জাতিক / আমরাই বাংলাদেশকে পৃথক হতে বাধ্য করেছি: নওয়াজ

আমরাই বাংলাদেশকে পৃথক হতে বাধ্য করেছি: নওয়াজ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : পাকিস্তানের ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট নওয়াজ শরীফ বলেছেন, আমাদের দোষেই বাংলাদেশের জন্ম। ১৯৭১ সালে আমাদের কারণেই বাংলাদেশ আলাদা হয়েছিল। মঙ্গলবার ইসলামাবাদে পাঞ্জাব হাউজে একদল আইনজীবীর সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

নওয়াজ বলেন, পাকিস্তান সৃষ্টির ক্ষেত্রে বাঙালিদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। কিন্তু আমরা তাদের সঙ্গে উপযুক্ত আচরণ করিনি এবং তাদের আমাদের থেকে বিচ্ছিন্ন করে দিই।

পানামা পেপারস কেলেঙ্কারির জের ধরে গত জুলাই মাসে নওয়াজকে প্রধানমন্ত্রী পদে অযোগ্য ঘোষণা করেন পাকিস্তানের সুপ্রিম কোর্ট। এরপর পদত্যাগ করেন তিনি। তখন থেকে কয়েকবার তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতা নিয়ে তৎকালীন পাকিস্তান সরকারের ভূমিকার সমালোচনা করেছেন।

পাকিস্তানের তিনবারের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ গতকাল বলেন, বিস্তারিত বিশ্লেষণের পর বাংলাদেশের স্বাধীনতা নিয়ে বস্তুনিষ্ঠ ও সুস্পষ্ট প্রতিবেদন দিয়েছিল বিচারপতি হামুদুর রহমান কমিশন। কিন্তু আমরা সেটা পড়েও দেখিনি। ওই প্রতিবেদনের ভিত্তিতে আমরা যদি পদক্ষেপ নিতাম তাহলে আজকের পাকিস্তান ভিন্ন হত এবং যে ধরনের খেলা হয়ে থাকে সেগুলো হত না।
১৯৭০ সালের নির্বাচনে আওয়ামী লীগ জয় পাওয়ার পরও তৎকালীন পাকিস্তান সরকার ক্ষমতা ছাড়েনি। উল্টো নানা টালবাহানার পর বাঙালির ওপর চালায় নির্মম হত্যাযজ্ঞ, যার পরিণতিতে স্বাধীনতার ঘোষণা দেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান।

ওই প্রসঙ্গ তুলে নওয়াজ বলেন, শেখ মুজিবুর রহমান বিদ্রোহী ছিলেন না, কিন্তু আমরা তাকে বিদ্রোহী করেছিলাম।
এরপর নিজের বর্তমান অবস্থার বিষয়ে নওয়াজ বলেন, বছরের পর বছর তাঁকে হয়রানি করা হয়েছে এবং প্রতিবাদী হতে বাধ্য করা হয়েছে। রাষ্ট্র কর্তৃক তাঁকে কোণঠাসা করার ঘটনার সঙ্গে ১৯৭১ সালে পাকিস্তান থেকে আলাদা হয়ে বাংলাদেশ সৃষ্টির সঙ্গে মিল আছে বলে মনে করেন তিনি।

নওয়াজ শরিফ বলেন, ‘আমার সঙ্গে এবং পাকিস্তানের সব নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে যা করা হয়েছে তা ঠিক নয়।’
গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত সরকারকে উৎখাতের এই ধারার অবসান দাবি করেন নওয়াজ। তিনি বলেন, পর্দার অন্তরাল থেকে যাঁরা গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়াকে কলুষিত করেছেন, তাঁদের উচিত পাপের জন্য অনুশোচনা করা এবং জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়া।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা নিয়ে পাকিস্তান সরকার গঠিত হামদুর রহমান কমিশনের প্রতিবেদনে একাত্তরে বাংলাদেশে গণহত্যার জন্য পাকিস্তানি সামরিক বাহিনীকে দায়ী করে তাদের বিচারের সুপারিশ করা হয়।
পাকিস্তান সে অনুযায়ী কোনো ব্যবস্থায়ই নেয়নি। একাত্তরে গণহত্যার জন্য বাংলাদেশের কাছে আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমাও চায়নি।

Comments

comments

এছাড়াও দেখুন

প্রতিদিন ৩শ’ রোহিঙ্গাকে ফেরত নেবে মিয়ানমার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারের সঙ্গে মাঠ পর্যায়ের একটি চুক্তি …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *